কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৪ নভেম্বর ২০১৭

উদ্ভিদ সংগনিরোধ উইং

উদ্ভিদ সংগনিরোধ উইং কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর এর একটি গুরুত্বপূর্ন অংগ। বিশ্ব বানিজ্য সংস্থা (WTO)-য় স্বাক্ষরকারী দেশ হিসাবে বাংলাদেশকে আন্তর্জাতিক বানিজ্যে টিকে থাকতে WTO-SPS (Sanitary and Phytosanitary Measures) Agreement অনুযায়ী উদ্ভিদ ও উদ্ভিদজাত পণ্য আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম পরিচালনা করা উদ্ভিদ সংগনিরোধ উইং এর জন্য বাধ্যতামূলক । বাংলাদেশের কৃষিকে রক্ষার জন্য উদ্ভিদ সংগনিরোধ উইং আমদানিকৃত উদ্ভিদ ও উদ্ভিদজাত পণ্য, উপকারী জীবাণু এবং প্যাকিং ম্যাটেরিয়াল এর সাথে পরিবাহিত হয়ে যাতে বিদেশী পোকামাকড় ও রোগবালাই দেশে প্রবেশ করতে না পারে, সে বিষয়ে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহন ও ঝুঁকিমুক্ত আমদানি নিশ্চিতকরন এবং  আন্তর্জাতিক বিধি-বিধান অনুসরনপূর্বক বিদেশে উদ্ভিদ ও উদ্ভিদজাত পন্য রপ্তানির মাধ্যমে রপ্তানি কার্যক্রম বৃদ্ধি ও গতিশীল করে আসছে। বাংলাদেশের উদ্ভিদ সংগনিরোধ কার্যক্রম আন্তর্জাতিক মানে উন্নীতকরণের লক্ষ্যেই ই-ফাইটোসেনেটারী সার্টিফিকেট পদ্ধতি প্রবর্তন এবং দেশের সকল সংগনিরোধ কেন্দ্রের ল্যাবরেটরী আধুনিকীকরণের কাজ এ উইং এর পর্যবেক্ষণে চলছে। মোদ্দাকথা হচ্ছে উদ্ভিদ সংগনিরোধ আইন-২০১১ এর বাস্তবায়নই উদ্ভিদ সংগনিরোধ উইং এর মূল লক্ষ্য।

পরিচালক

কৃষিবিদ মোহাম্মদ মহসীন

 

উদ্ভিদ সংগনিরোধ উইং এর প্রধান দায়িত্বগুলো হলোঃ

  • অন্য দেশ হতে বাংলাদেশে সংগনিরোধ বালাই এর অনুপ্রবেশ রোধের লক্ষ্যে উদ্ভিদ বা উদ্ভিদজাত দ্রব্যাদি, উপকারী জীবাণু ও প্যাকিং  দ্রব্যাদির আমদানি নিয়ন্ত্রণ করা;  
  • আন্তর্জাতিক চুক্তিসমূহের সহিত সঙ্গতি রেখে আমদানিকারী দেশের উদ্ভিদ স্বাস্থ্যসুরক্ষা চাহিদা মোতাবেক উদ্ভিদ বা উদ্ভিদজাত দ্রব্যাদি, বালাই, উপকারী জীবাণু ও প্যাকিং দ্রব্যাদির রপ্তানি নিয়ন্ত্রণ করা;
  • আন্তর্জাতিক পরিবহণে রয়েছে এমন উদ্ভিদ বা উদ্ভিদজাত দ্রব্যাদি, উপকারী জীবাণু এবং প্যাকিং দ্রব্যাদির কনসাইনমেন্ট, যা প্রাসঙ্গিকভাবে বালাই এর বাহন হিসাবে ব্যবহৃত হতে পারে, তা পরিদর্শন ও তত্ত্বাবধান করা;
  • বালাই এর প্রাদুর্ভাব এবং বিস্তার রোধের লক্ষ্যে বর্ধনশীল উদ্ভিদ, আবাদকৃত এলাকা, গুদামজাত অথবা ট্রানজিটরত উদ্ভিদ বা উদ্ভিদজাত দ্রব্যাদি পরিদর্শন এবং আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা;
  • আমদানিকারী দেশের উদিভদ স্বাস্থ্যসুরক্ষা চাহিদা অনুযায়ী উদ্ভিদস্বাস্থ্য সনদপত্র প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহণ করা;
  • উদ্ভিদ বা উদ্ভিদজাত দ্রব্যাদির কনসাইনমেন্ট ও এদের কনটেইনার, প্যাকিং দ্রব্যাদি, সংরক্ষণ স্থান অথবা বাহন বালাই আক্রমণমুক্ত বা সংক্রমণমুক্ত করার নিমিত্ত শোধন কার্যক্রম পরিচালনা;
  • উপকারী জীবাণুর প্রবর্তন নিয়ন্ত্রণ করা;
  • কোন একটি সংক্রমিত এলাকাকে ‘‘নিয়ন্ত্রিত এলাকা’’ হিসাবে ঘোষণা করা;
  • উদ্ভিদ বা উদ্ভিদজাত দ্রব্যাদির প্রবেশোত্তর সংগনিরোধ (post-entry quarantine) কার্যক্রম পরিচালনা এবং উদ্ভিদ স্বাস্থ্যসুরক্ষা ব্যবস্থাদি বাসত্মবায়ন করা;
  • বালাই ঝুঁকি বিশ্লেষণ (pest risk analysis) এবং বালাই ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা (pest risk management) কার্যক্রম পরিচালনা;
  • উদ্ভিদ স্বাস্থ্যসুরক্ষা ব্যবস্থাদি হালনাগাদ এবং সমন্বয় (harmonization) করার উদ্দেশ্যে বাংলাদেশে আমদানি নিষিদ্ধ বা শর্তারোপকৃত (restricted) উদ্ভিদ বা উদ্ভিদজাত দ্রব্যাদি, বালাই ও উপকারী জীবাণুর তালিকা নিয়মিত পর্যালোচনা এবং হালনাগাদ করা;
  • বিভিন্ন স্বীকৃত আন্তর্জাতিক, আঞ্চলিক অথবা অন্যান্য জাতীয় উদ্ভিদ সংরক্ষণ সংস্থার সাথে কারিগরি তথ্য, মতামত ও প্রতিবেদন বিনিময় এবং উদ্ভিদ সংরক্ষণ ও সংগনিরোধ বিষয়ে সর্বশেষ উন্নয়ন সম্পর্কে অবহিত থাকা;
  • নির্দিষ্ট বালাই এর ডায়াগনোসিস, সনাক্তকরণ এবং পরিচিতি নির্ণায়ক কার্যক্রম পরিচালনা;
  • বাংলাদেশে সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা এর উন্নতি সাধন এবং নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম পরিচালনা;
  • উদ্ভিদ স্বাস্থ্যসুরক্ষা বাংলাদেশ পক্ষভুক্ত বা স্বাক্ষরকারী এমন আন্তর্জাতিক চুক্তি, প্রটোকল, কনভেনশন ইত্যাদি অনুসরণ এবং বাস্তবায়ন কার্যক্রম পরিচালনা এবং উদ্ভিদ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কার্যক্রম অনুসরণ, পরিচালনা ও সমন্বয় করা;
  • জেনেটিক্যালি মডিফাইড অর্গানিজমস (GMO), লিভিং মডিফাইড অর্গানিজমস (LMO) এবং এলিয়েন ইনভেসিভ স্পেসিস এর ট্রান্সবাউন্ডারী মুভমেন্টস এবং এদের  অনুপ্রবেশ ঝুঁকি বিশ্লেষণ এবং নিয়ন্ত্রণ করা;
  • বাংলাদেশে বিদ্যমান উদ্ভিদ সংগনিরোধ সম্পর্কিত বালাই এর উপর জরিপ, নজরদারী (surveillance) ও উদ্ভিদ সংগনিরোধ গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা;
  • বাংলাদেশের ভিতরে উদ্ভিদ বা উদ্ভিদজাত দ্রব্যাদির বালাই সম্বন্ধীয় তথ্যাদি, এদের আক্রমণ বা সংক্রমণ প্রতিরোধ পদ্ধতি ও এর নিয়ন্ত্রণ এবং এতদসংশ্লিষ্ট বিষয়ে তথ্যাদি সংরক্ষণ;
  • এই আইনের অধীনে কোন অপরাধ সংঘটিত হয়েছে বা হচ্ছে বা হবার উপক্রম হয়েছে বা আমদানী অনুমতিপত্র বা উদ্ভিদস্বাস্থ্য সনদপত্রের শর্তাবলী লঙ্ঘিত হচ্ছে বলে বিশ্বাস করার যুক্তিসংগত কারণ থাকলে নিমণরূপ ব্যবস্থা গ্রহণ। যথাঃ-
  • সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির নিকট রক্ষিত রেজিস্টার অথবা রেকর্ড হইতে সার-সংক্ষেপ সংগ্রহ এবং অপরাধ প্রমাণের ক্ষেত্রে যে সকল রেজিস্টার প্রয়োজনীয়, তা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত আটক ও স্বীয় তত্ত্বাবধানে সংরক্ষণ করা;
  • বাংলাদেশে প্রবেশ অথবা বাংলাদেশ হতে প্রস্থানের সময় যে কোন ব্যক্তিরদেহ তল্লাশি অথবা ব্যক্তির সাথে বহনকৃত অন্য কোন বস্ত্ত মালপত্র ও যানবহন তল্লাশি, পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও আটক করা;
  • নির্দিষ্ট সময়ের জন্য কোন উদ্ভিদ বা উদ্ভিদজাত দ্রব্য বিতরণ, বিক্রয় বা ব্যবহার নিষিদ্ধ করা;
  • উদ্ভিদ সংগনিরোধ গবেষণাগার রক্ষনাবেক্ষণ ও উন্নয়ন;
  • সরকার কর্তৃক অর্পিত অন্য যে কোন দায়িত্ব পালন।

 

মাঠ পর্যায়ে উদ্ভিদ সংগনিরোধ কেন্দ্র সমূহঃ

ক্র. নং

‘‘ক’’ শ্রেণীভুক্ত (১২টি)

‘‘খ’’ শ্রেণীভুক্ত (৮টি)

‘‘গ’’ শ্রেণীভুক্ত (১০টি)

সমুদ্রবন্দর, চট্টগ্রাম

স্থলবন্দর,দর্শনা, চুয়াডাংগা

স্থলবন্দর, কামালপুর, বকশীগঞ্জ, জামালপুর

স্থলবন্দর, টেকনাফ, কক্সবাজার

স্থলবন্দর, তামাবিল, সিলেট

স্থলবন্দর, বিলোনিয়া, ফেনী

শাহজালাল আমর্ত্মজাতিক বিমানবন্দর, ঢাকা

স্থলবন্দর, জকিগঞ্জ, সিলেট

স্থলবন্দর, বিরল, দিনাজপুর

সমুদ্রবন্দর, মংলা, বাগেরহাট

স্থলবন্দর, বাংলাবান্ধা, পঞ্চগড়

স্থলবন্দর, বেতুলি, মৌলভীবাজার

স্থলবন্দর, ভোমরা, সাতক্ষীরা

স্থলবন্দর, রহনপুর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

স্থলবন্দর, চাতালপুর, মৌলভীবাজার

স্থলবন্দর, বেনাপোল, যশোর

স্থলবন্দর, বিবির বাজার, কুমিল্লা

স্থলবন্দর, হালুয়াঘাট, ময়মনসিংহ

স্থলবন্দর, আখাউড়া, ব্রাহ্মনবাড়িয়া

নদীবন্দর, নারায়নগঞ্জ

স্থলবন্দর, দৌলতগঞ্জ, জীবননগর, চুয়াডাঙ্গা

স্থলবন্দর, সোনামসজিদ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

আইসিডি, কমলাপুর, ঢাকা

স্থলবন্দর, বিয়ানীবাজার, সিলেট

স্থলবন্দর, হিলি, হাকিমপুর, দিনাজপুর

 

স্থলবন্দর, ভুরুঙ্গামারী, কুড়িগ্রাম

১০

স্থলবন্দর, বুড়িমারী, পাটগ্রাম, লালমনিরহাট

 

স্থলবন্দর, নাকুগাঁও, নালিতাবাড়ী, শেরপুর

১১

শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, চট্টগ্রাম

 

 

১২

ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, সিলেট

 

 

 

উদ্ভিদ সংগনিরোধ উইং এর আওতাধীন চলমান কর্মসূচি/ প্রকল্প:

১। বাংলাদেশ ফাইটোসেনেটারী ক্যাপাসিটি শক্তিশালীকরণ প্রকল্প।

২। রপ্তানীযোগ্য লেবু ও সবজি উৎপাদন বিশেষ কর্মসূচী।

 

প্রয়োজনীয় তথ্যসমূহঃ

  লেবু জাতীয় ফসলের বালাই ঝুকি বিশ্লেষণ-এর চূড়ান্ত প্রতিবেদন

  উদ্ভিদ সংগনিরোধ কার্যক্রম প্রতিবেদন সেপ্টেম্বর’২০১৪

  উদ্ভিদ সংগনিরোধ বিষয়ক উপস্থাপনাঃ পেস্ট রিস্ক এনালাইসিসপেস্ট রিস্ক এনালাইসিস অন সাইট্রাস ক্রপসজেনটেশন অন ফাইটোসেনেটারী

ফাইটোস্যানিটারী দ্রব্যাদি আমদানী ও রপ্তানীতে প্রয়োজনীয়

আমদানী ও রপ্তানী অনুমতি প্রত্রের জন্য করণীয়

 

 

উদ্ভিদ সংগনিরোধ উইং-এর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দঃ

নাম পদবী ই-মেইল আইডি টেলিফোন নম্বর
কৃষিবিদ মোহাম্মদ মহসীন পরিচালক dpqw@dae.gov.bd +৮৮ ০২ ৯১৩১২৯৬
কৃষিবিদ মোঃ আজহার আলী অতিরিক্ত পরিচালক (আমদানী, রফতানী ও পরীক্ষাগার)  adeil@dae.gov.bd +৮৮ ০২ ৯১৩১২৬৩
কৃষিবিদ মো. আবু ছাদেক উপপরিচালক (আমদানি) ddimport@dae.gov.bd +৮৮ ০২ ৮১২৭৯৯৮
কৃষিবিদ মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন খান উপপরিচালক (রফতানি) ddexport@daee.gov.bd +৮৮ ০২ ৮১১৪৭৪০
হোসনে আরা অতিরিক্ত উপপরিচালক (আমদানি) addimport1@dae.gov.bd  
অঞ্জন চন্দ্র মন্ডল অতিরিক্ত উপপরিচালক (আমদানি) addimport2@dae.gov.bd  
কামরুন নাহার অতিরিক্ত উপপরিচালক (রফতানি) addexport@dae.gov.bd  
রীতা দে অতিরিক্ত উপপরিচালক (সংগনিরোধ রুলস, পলিসি ও পরীক্ষাগার) addqrpl@dae.gov.bd  
  সংগনিরোধ কীটতত্ত্ববিদ (আমদানি) quaranentomimport@dae.gov.bd  
ফাল্গুনী মজুমদার সংগনিরোধ রোগতত্ত্ববিদ (আমদানি) quaranpathoimport@dae.gov.bd  
  সংগনিরোধ কীটতত্ত্ববিদ (রফতানি) quaranentomexport@dae.gov.bd  
  সংগনিরোধ রোগতত্ত্ববিদ (রফতানি) quaranpathoexport@dae.gov.bd  
সুব্রত কুমার দাস সংগনিরোধ কীটতত্ত্ববিদ (সংগনিরোধ রুলস, পলিসি ও পরীক্ষাগার) quranentomqrpl@dae.gov.bd  
কারিমা আকতার সংগনিরোধ রোগতত্ত্ববিদ (সংগনিরোধ রুলস, পলিসি ও পরীক্ষাগার) quaranpathoqrlp@dae.gov.bd  

 

উদ্ভিদ সংগনিরোধ উইং এর সাংগঠনিক কাঠামো উদ্ভিদ সংগনিরোধ উইং এর সাংগঠনিক কাঠামো

Share with :